হেমন্তে ভালোবাসা

কোন এক হেমন্তে বলেছিলো ললনা
ভালোলাগার কথা বিনম্র লজ্জায়
কখনো ভয়ে আবার কখনো শিহরণে
গোধূলিতে হারিয়ে যাওয়া মন উঠেছিল কেঁপে

বৃষ্টির শব্দের চেয়ে ও অনেক ধীরগতিতে ছিল
ভালোবাসার সেই কথোপকথন
পাখিরা ও দল বেঁধে সমস্বরে তুলেছিল গান
যেখানে দূর নীলিমায় ভেসেছিল ভালোবাসার কাহন

অনুভূতিগুলো অদৃশ্য ইথারের উর্মিমালায়
বারবার কানের পাশে করে উচ্চারণ
কেননা হেমন্ত ভালোবাসা ফিরে আসে বারবার
এই কার্তিকের নবান্নের দেশে

সোনালী ধানের পাশে বহমান বাতাসে
যখন কোকিল পাখিরা এসে করবে কুহুতান
আমি তখনো আবার ভেসে যাবো সেই
কুয়াশা ভোরে ফেলে আসা হেমন্তের উঠোন

কল্পনায় আমি সেই ভালোবাসার উৎসবে বিভোর
যেখানে মেতেছে গ্রামের পর গ্রাম
তরুণীর রক্তিম মুখখানি যখন রোদেলা উঠোনে ভেসে উঠে
কপোতাক্ষের তীরে বসে দেখি ভালোবাসার জয়গান

কত শত হেমন্ত ফিরে আসে এই বাংলায়
দখিনের বাতাসে বয়ে বেড়ায় শীতের হিমেল হাওয়া
বেলাশেষে একদিন হেমন্ত পাড়ি দেয় ভিন দেশে
আমার মত বাঙালির মন কাঁদে স্নিগ্ধ শ্যামল বাংলায়

Leave a Reply